পবিত্রময় স্থান চট্টগ্রামের সৌন্দর্যময় চেরাগী পাহাড়!


শাহ বদর উদ্দিন আল্লামা (রহঃ) চট্টগ্রামের অন্যতম বিখ্যাত ওলী আল্লাহ ও দরবেশ। তাঁকে চট্টগ্রামের অভিভাবক দরবেশও বলা হয়। জনশ্রুতি আছে যে, প্রায় ছয়-সাতশত বছর আগে বদর পীর বা শাহ বদর উদ্দিন আল্লামা (রহঃ) একটি প্রকান্ড পাথর খন্ডে আরোহন করে পানির উপর ভাসতে ভাসতে চট্টগ্রামে এসে আবতরণ করেন। তখনকার সময় চট্টগ্রাম জিন, দেও, পরী ও ভূত প্রেতির প্রাদুর্ভাব ছিল। শাহ বদর এসে জিন, দেও পরীদের কাছ থেকে মাটির তৈরি প্রদীপ (চেরাগ) রাখবার উপযোগী ভূমিখন্ড চাইলেন। তাঁর ইচ্ছানুসারে একটি পাহাড়ের উপর দীপাধার রাখার স্থান দেওয়া হল। সন্ধা হয়ে এলে চারদিকে অন্ধকারচ্ছন্ন হয়ে যেত তখন পীর প্রদীপ জালাতেন।আসলে প্রদীপটি ছিল একটি আশ্চর্য প্রদীপ। এটি জালানোর সাথে সাথে ভূত, প্রেত, জিন, পরী দূরে পালিয়ে যেত। দরবেশ যখনই প্রদীপ জালাতেন বাতির আলোশিখা তখনই পাহাড়ের চূড়া থেকে বহুদূরে ছড়িয়ে পড়তো। যে পাহাড়ের উপর পীর বাতি বা চেরাগ জালাতেন সেটি এখন চেরাগী পাহাড় নামে পরিচিত। মুসলিম, হিন্দু, খৃষ্টান জনসাধারণ মনস্কামনা সিদ্ধ হওয়ার জন্য প্রতি সন্ধায় এ স্থানে আলো দান করে থাকে। এভাবে চট্টগ্রাম শহরকে বাসোপযোগী করা হয় এবং ক্রমে চট্টগ্রাম জেলার সর্বত্র মনুষ্য বাসের উপযোগী জনপদ গড়ে তোলা হয়। চাটি দিয়ে আলো শিখা বিকিরণ করে ঝাড়-জঙ্গল আবাদ পরিস্কার করা হয়েছে বলে এর নাম হয়েছে চাটিগ্রাম বা চাটগাঁও। হযরত বদর আউলিয়া (রহঃ) পাথরে ভেসে কর্ণফুলী নদীর যেই স্থানে নামেন সেটিকে পাথর ঘাটা বলা হত। তখনকার সময় কর্ণফুলী নদীর অবস্থান পাথর ঘাটা স্থানে ছিল। কালক্রমে চর পড়তে পড়তে বর্তমান স্থানে অবস্থান করে আর সেই চর পড়া স্থানকে আজ আমরা পাথর ঘাটা নামে চিনি। বদর আউলিয়ার মাজার চট্টগ্রামের বক্সির হাটের পাশে অবস্থিত। এটি চট্টগ্রামের সবচেয়ে প্রাচীন ইমারত হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে ঐতিহাসিকদের কাছে। চট্টগ্রামের পুরাকীর্তি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করছেন ইটারনাল চিটাগাং বইয়ের লেখক শামসুল হোসেন। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটি যে সবচেয়ে পুরোনো ভবন তাতে আমার কোনো সন্দেহ নেই। মাজারটি অন্তত ৭০০ বছরের পুরোনো। মাজারের স্থাপত্যশৈলী দেখে বোঝা যায় এটি পুরোপুরি সুলতানি আমলের। #সূত্রঃ ইউকিপিডিয়া, প্রথম আলো প্রতিবেদন আমাদের সূফীয়ায়ে কিরাম, পৃঃ৭০, বিষয় ভিত্তিক কেরামতে আউলিয়া ||সংকলকঃ মুহাম্মদ তাহের হোসাইন||

https://www.facebook.com/taherh21