Feeling Loved

'রিক্সাওয়ালা জানালেন আজ পাঁচ কেজি চাল, দু’কেজি ডালের একটা ত্রাণ প্যাক পেয়েছিলেন, তিনি তা নেন নি।
কেনো নেন নি?
শোনেন ঘরে আমার এখনো দশ কেজি আছে, বাপ-বেটির আরো দশ দিন যাবে। আমি যদি নেই তো যার ঘরে নাই তার কী হবে!

এমন বিবেকবান রিক্সাওয়ালা!
হ্যাঁ!
তার কারণ তিনি স্ব-শিক্ষিত! তার একমাত্র কন্যা চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স শেষ করে বিসিএস লিখিত পরীক্ষা দিচ্ছে। মেয়ের বয়স যখন ৬/৭ তখন তার স্ত্রী মারা যায়। মেয়েকে বুকে আগলে রেখে মায়ের স্নেহ ভালোবাসা দিয়ে বড় করেছেন। মেয়ের অমর্যাদা হবে ভেবে উত্তরা থেকে এসে তেজগাঁও-মগবাজার এলাকায় রিক্সা চালান। এখনো নিজে রান্না করে মেয়েকে খাইয়ে কাজের জন্য চলে আসেন।

এমন বাবার প্রতি শ্রদ্ধা তো রাখাই যায়!
কাজ ছোট হলেই মানুষ ছোট হয় না!!

(The Independent পত্রিকার সাংবাদিক এমদাদুল হক বাদল-এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেওয়া)

image